আজের এই সাঁঝ বেলায় 

3123

এখন যে রকম // বিশ্বনাথ পাল

সহসা কোথা থেকে উড়ে এল

এত কালো – এত অন্ধকার

শকুনের বুকের ধূসর কালিমা যেন

সহসা ছেয়েছে আকাশ। 

অসহিষ্ণুতার সহিংস নীতি

ইতিহাসের গতি বদলাতে চায়

চোরা পথে বুঝি বা অমৃতে অরুচি

নেই ওর। সাধারণ মানুষ 

ধুঁকছে টেনশনে। আর বড়োরা

ছোটদের ফিসফিস করে

 বলছে, ‘সাবধান, খুব সাবধান’। 

.

.

.

বহমান এ জীবন  //  রণেশ রায়

আজের এই সাঁঝ বেলায় 

তোমার  দেখি বিদায়ের সাজ

অসম্পূর্ণ জীবন তোমার

রয়ে গেল না করা কত কাজ!

 দিনান্তে এই গোধূলি বেলায়

সার্থকতা কই এ জীবনে তোমার !

জীবন যে ধূসর, কাটে অবহেলায়

কেটে যায় অনর্থক সব দিন

কেন বল সার্থক এ জীবন

নিরর্থক ব্যার্থতায় বিলীন।

সম্পূর্ণতা কই জীবনে কার?

জীবন যে বহমান,

আজ যা শেষ কাল তা শুরু  আবার

সময়ের তরী বয়ে চলা এ জীবন,

দিন শেষে রেখে যেতে হয় 

যা করা হয় না এখন

আজের কাজ কালের তরে রয়,

অসম্পূর্ণ যা থেকে যায় আজ

কাল সেখান থেকে শুরু তোমার

তোমাতে আমাতে মিলি বয়ে চলে কাল

কালের প্রবাহে বিরতি কোথায় আর!

দিন শেষে রাত, রাত শেষে দিন

দিনে দিনে প্রতিদিন, ক্ষণে ক্ষণে প্রতিক্ষণ

আজের আমি কালের তোমাতে বিলীন,

অতীত বর্তমান ভবিষ্যৎ

কালের বহমানে এ জীবন! 

ক্ষুদে আমি ক্ষুদে তুমি

তুমি আমি নশ্বর

তুমি আমি মিলে এ মহাবিশ্ব

সে যে অবিনশ্বর।

.

.

.

দেব তুলে এনে  //  রণেশ রায়

ফোটে কত না ফুল আমার জীবন প্রাঙ্গনে

কত না বর্ণ গন্ধ সুবাস ছড়ায়

একটা লাল গোলাপ দেব তুলে এনে,

তুমি এসো 

আমার ভাবনার আঙিনায়,

হৃদয়ের গভীরে আমার মননে

তোমার জন্যে আমি অপেক্ষায়,

তুমি আসবে যখন সেই ঊষা লগনে

আমাকে রাঙিয়ে তোমার চেতনায়,

বহুত্বের মাঝে তুমি একতারা হয়ে বাজ

আমার জীবনের মোহনায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *